কমলগঞ্জে ব্যবসায়ীর ওপর সন্ত্রাসী হামলা, ২ লাখ ৩ হাজার টাকা লুট

প্রকাশিত: ১২:২১ পূর্বাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০

কমলগঞ্জে ব্যবসায়ীর ওপর সন্ত্রাসী হামলা, ২ লাখ ৩ হাজার টাকা লুট

সিলেটের নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কমঃ

কমলগঞ্জ উপজেলার চৈত্রঘাট বাজারসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় সন্ত্রাসীদের মহড়া চলছে। গত ২ জুন মঙ্গলবার ব্যবসা করে বাড়িতে যাওয়ার পথে রাতে সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন চৈত্রঘাট বাজারের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী আব্দুল আহাদ এন্ড সন্স এর স্বত্বাধিকারী জুয়েল মিয়া (৪০)। সে প্রতাপী গ্রামের আব্দুল আহাদ নাইসের ছেলে। এ সময় সন্ত্রাসীরা তার নিকট থাকা ২লাখ ৩ হাজার টাকা নিয়ে যায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ব্যবসায়ী জুয়েল মিয়া রাত ৮টার দিকে চৈত্রঘাট বাজার থেকে ব্যবসা করে বাড়িতে আসার সময় বাজার সংলগ্ন টানিং মোড়ে লাকুস মিয়ার ছেলে শামসুল ইসলাম, সহোদর নাজমুল ইসলাম, রাজেল মিয়া, রাসেল মিয়া তাদের চাচাতো ভাই শফিক ও রকিব প্রায় ১৪-১৫ জন সন্ত্রাসীরা তাকে আটক করে বেদম প্রহার করে মুমূর্ষু অবস্থায় রাস্তায় ফেলে দেয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা তার কাছে থাকা ২ লাখ ৩ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। সাবেক মেম্বার মদরিছ মিয়া সহ এলাকাবাসী জুয়েলকে গুরুতর অবস্থায় স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে থেকে তাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে এসে সেখানে চিকিৎসা না পেয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে জুয়েল বর্তমানে চিকিৎসাধীন । সন্ত্রাসী শামসুল ইসলাম তাদের বাহিনী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। এ সময় চৈত্রঘাট বাজারের ব্যবসায়ীসহ লোকজনের মাঝে আতংক এবং ভীতি সৃষ্টি হয়। বাজারের এ ঘটনা প্রত্যক্ষদর্শী সাবেক মেম্বার মদরিছ আলী জানান, সন্ত্রাসীরা জুয়েল কে প্রাণে মারার চেষ্টা করে সন্ত্রাসীরা ব্যর্থ হয়। গুরুতর অবস্থায় জুয়েল মিয়াকে এলাকাবাসীসহ স্থানীয় ব্যবসায়ী শাহিন মিয়ার দোকানে রক্তাক্ত অবস্থায় রাখি। লকডাউন সবে মাত্র শেষ মানুষ আতঙ্ক বৈশ্বিক করোনা এলাকায় লোকজন ঘর থেকে বের হচ্ছেনা। কোন গাড়ি পাওয়া যায়না অনেক চেষ্টার পরে মৌলভী বাজার থেকে এম্বুলেন্স এনে জুয়েলকে মুমুর্ষ অবস্থায় সিলেট রাগিব রাবেয়া মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক। জুয়েলের ভাই জানান সন্ত্রাসী হামলা ও নগদ টাকা লুটপাট করার অভিযোগ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগের প্রস্ততি চলছে।
জুয়েলের ভাই তোফায়েল আহমদ সহ মাসুক মিয়া আরো অনেকে দাবি করেছেন, চৈত্রঘাট বাজারে তাদের একটি স্বনামধন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আব্দুল আহাদ এন্ড সন্স মুদি দোকান দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন জুয়েল। সম্প্রতি একই গ্রামের শামসুল ইসলাম সন্ত্রাস বাহিনী গংদের নিয়ে দোকান দখল করে নেওয়ার পায়তারা চালাচ্ছে।
এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ উপজেলার ১নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমদ বদরুলের সাথে ফোনালাপে জানতে চাইলে তিনি বলেন এরা এলাকার লাটিয়াল বাহিনী সন্ত্রাসী, চিনতাই চাঁদাবাজিসহ অসংখ্য মামলা তাদের আছে। এলাকার মানুষ লাকুম মিয়ার ছেলে শামসুল , নাজমুল সহ ৪ ভাই তাদের প্রতি এসব কার্যকলাপে মানুষ অতিষ্ঠ। তিনি বলেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

shares