জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে নবীগঞ্জে ফ্রি -বিশেষজ্ঞ মেডিকেল ক্যাম্প ও আলোচনা সভা ৬শ’ রোগরীকে চিকিৎসাসেবা প্রদান

প্রকাশিত: ১:৫৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০২২

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে নবীগঞ্জে ফ্রি -বিশেষজ্ঞ মেডিকেল ক্যাম্প ও আলোচনা সভা  ৬শ’ রোগরীকে চিকিৎসাসেবা প্রদান

সিলেটের নিউজ টুয়েন্টিফোরঃ
এশিয়া মহাদেশের প্রখ্যাত চিকিৎসক এমএজিওসমানী মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডা. এম এ খালেক স্মুতি স্বাস্থ্যকেন্দ্র আয়োজিত সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙ্গালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল, জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকা ও সীমান্তিক এর যৌথ উদ্যোগে এবং বেক্্িরমকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড-এর সহযোগিতায় ১২ আগস্ট শুক্রবার হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলাধীন শিবগঞ্জ বাজারস্থ ‘অধ্যাপক ডা. এম এ খালেক স্মৃতি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে’ দিনব্যাপি হৃদরোগ চিকিৎসাসহ এক ফ্রি-মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয় । স্থানীয়ভাবে এ মেডিকেল ক্যাম্পের ব্যবস্থাপনায় সহযোগিতা প্রদান করেন নবীগঞ্জ কল্যাণ সমিতি সিলেট।
নবীগঞ্জ উপজেলায় বৃহৎ পরিসরে অনুষ্ঠিত এ ফ্রি-মেডিকেল ক্যাম্পে দেশের খ্যাতিমান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞসহ চিকিৎসা বিজ্ঞানের অন্যান্য বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকবৃন্দ দিনব্যাপি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত প্রায় ৬শ’ রোগীকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। নবীগঞ্জ উপজেলা ছাড়াও পার্শ¦বর্তী বানিয়াচং ও বাহুবল উপজেলা থেকেও দরিদ্র রোগীরা এ ফ্রি-মেডিকেল ক্যাম্প থেকে চিকিৎসা সেবা লাভ করেন।
এ উপলক্ষে ‘অধ্যাপক ডা. এম এ খালেক স্মৃতি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে’ এর সভাকক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জালালাবাদ ঢাকা এসোসিয়শেনের সহ-সভপতি সৈয়দ জগলুল পাশা এর সভাপতিত্বে এবং নবীগঞ্জ কল্যাণ সমিতি সিলেট এর সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবুল ফজল এর পরিচালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, দেশের বিশিষ্ট কার্ডিওলজিস্ট অধ্যাপক ডা.খালেদ মোহসিন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাঃ জাফরউল্লাহ, ইউপি চেয়ারম্যান মো.ইমদাদুল হক চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রকৌশলী মো.মনিরুল হক, শাফি চৌধুরী, ঢাকা জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সদস্য আব্দুল আউয়াল,বেক্্িরমকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের সিলেটের রিজিওনেল ম্যানেজার মো. জাহাঙ্গীর আলম, মাহবুবুর রহমান হারুন, নুর উদ্দিন বুলুবুল, কাজী হেলাল।
আরোও উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, শাহ মোস্তাকিন আলী প্রিন্স,বিশিষ্ট সমাজসেবী শালিস ব্যক্তিত্ব বয়েত উল্লাহ, এডভোকেট মফিজুর রহমান, ডা. শাহ আজাদ আলী সুমন, এস আর চৌধুরী সেলিম, সাংবাদিক এম ইজাজুল হক ইজাজ, আব্দুর রহিম তালুকদার প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, শেখ মুজিবের জন্ম না হলে বিশ্বসভায় নতুন করে আরো একটি ভুখন্ড তৈরি হতোনা। বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের স্থপতি উল্লেখ করে তিনি বলেন, জেল-জুলুম আর নির্যাতনের স্টিমরোলার চালিয়েও বঙ্গবন্ধুকে দাবিয়ে রাখা যায়নি। তিনি আদর্শিক সংগ্রামে ছিলেন অবিচল। ফলে, উচ্চাকাঙ্খি ও বিপথগামী সেনা সদস্যরা ৭৫’র ১৫ আগষ্ট স্বপরিবারে জাতির পিতাকে হত্যা করার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে অচল করে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়েছিল। তিনি বলেন, আজ তাঁরই কন্যা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে জাতির পিতার সেই স্বপ্নের বাসযোগ্য স্বদেশ নির্মানে প্রাণান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
সভার শেষে জাতির জনক বঙ্গব্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন হাফিজ মাওলানা শফিউল ইসলাম চৌধুরী।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

shares