নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বিবেকানন্দ দাশ বিবেক

প্রকাশিত: ৫:০৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৯, ২০২১

নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বিবেকানন্দ দাশ বিবেক

বিয়ানী উপজেলার ৮ নং তিলপাড়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বৃহত্তর বন্দর বাজার যুবলেীগের সাবেক সভাপতি তিলপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বিবেকানন্দ দাশ বিবেক চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। ইউনিয়নবাসীর সমর্থন ও সহযোগিতা পেলে মানব সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করার মাধ্যমে ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ও মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে চান তিনি।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে তৃণমূল থেকে উঠে আসা বিবেক এখন ইউনিয়নবাসীর কাছে আইকন হিসেবে পরিচিত এবং চেয়ারম্যান পদ প্রত্যাশী হিসেবে তিনি জনগণের ভালোবাসা পাচ্ছেন অনেক।
দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সঠিক সিদ্ধান্তই নিবেন। যোগ্য ব্যক্তিকেই মনোনয়ন দিবেন। তিনি বলেন, করোনাকালীন সময় থেকে আমি নিজের অবস্থান থেকে কর্মহীন হয়ে পড়া দেশের অসহায় দরিদ্র মানুষের পাশে ছিলাম। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে আমার সাধ্যমত সহযোগিতা করে থাকি। এলাকার জনগণ আমাকে নির্বাচন করতে উৎসাহ দিচ্ছেন। তাদের আশা পূরণের জন্য আমি নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী। আশা করছি দল আমাকে মনোনয়ন দিবে। নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে জয়ী হওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অংশীদার হয়ে ইউনিয়ন সেবা নিশ্চিত করতে চান বিবেকানন্দ দাশ বিবেক। তিনি বলেন, দল মনোনয়ন প্রদান করলে আমি নির্বাচন করবো। দলের সিদ্ধান্ত আমার সিদ্ধান্ত।

সম্প্রতি সিলেটের নিউজ টুয়েন্টিফোর এর সম্পাদক এম ইজাজুল হক ইজাজ এর সাথে একান্ত সাক্ষাতে বিবেকানন্দ দাশ বিবেক বলেন, তিলাপাড়া ইউনিয়নের অবহেলিত-অসহায় মানুষের দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে সমাজসেবামূলক কাজে আত্মনিয়োগ করতে চাই। ইউনিয়নবাসীর সমর্থন, সহযোগিতা ও ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে সকল অবহেলিত-অসহায় হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাবো। কাঙ্খিত উন্নয়ন বঞ্চিত ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ও মডেল ইউনিয়ন হিসেবে উপহার দিতে এলাকায় শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়ন, অপরাধ প্রবনতা নির্মূল করণসহ নারী ও শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ এবং বহুবিবাহ প্রতিরোধ, সমাজের সহিংসতা বন্ধ, যুব সমাজকে মাদকদ্রব্য সেবনের হাত থেকে ফিরিয়ে আনার অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবো। পাশাপশি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, পিছিয়ে পড়া অবহেলিত জনগোষ্ঠীদের সার্বিক সহযোগিতা, সামাজিক উন্নয়ন, আমন ও বোরো উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সেচের ব্যবস্থা, রাস্তা নির্মাণ, বিদ্যুতায়ন, লেখাপড়ার মানোন্নয়ন, খেলাধুলার ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের মাধ্যমে অবহেলিত ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ও মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবো ইনশাআল্লাহ। এরজন্য তিনি সকলের সমর্থন, সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করে আরো বলেন, আমি ছাত্রজীবন থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে বর্তমানে কর্মী হিসেবে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে আসছি। বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামীলীগকে মনেপ্রাণে ভালোবাসি বলে আমি মুজিব আদর্শের একজন ক্ষুদ্র সৈনিক হিসেবে আর্ত মানবতার সেবায় ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাধ্যমতো অবহেলিত-অসহায় মানুষের সাহায্য সহযোগিতা করতে চাই। আমি বিশ্বাস করি ব্যাপক পরিসরে জনসেবায় আত্মনিয়োগ করতে জনপ্রতিনিধির বিকল্প নেই। এলাকায় আমার ব্যাপক জনসমর্থন আছে। আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলে ইনশাআল্লাহ আমি বিজয়ী হবো। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজে অংশীদার হতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ আমাকেই দলীয় মনোয়ন দেবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

shares