মধ্য জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ লোকমান হোসেন শিকদার এর আনারস মার্কা প্রতীকে জয়জয়কার

প্রকাশিত: ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২২

মধ্য জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ লোকমান হোসেন শিকদার এর আনারস মার্কা প্রতীকে জয়জয়কার

আসন্ন নবগঠিত মধ্য জাফলং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে সকলের কাছে দোযয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী মধ্য জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের বিশিষ্ট সমাজসেবী ও শিক্ষানুরাগী মোঃ লোকমান হোসেন শিকদার।
লোকমান হোসেন শিকদার সিলেটের নিউজ টুয়েন্টিফোরকে বলেন, নবগঠিত ১১নং মধ্য জাফলং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে সুখে দুঃখে ইউনিয়নবাসীর পাশে থাকতে চাই। আপনারা যদি আমাকে আনারস মার্কায় আপনাদের মূল্যবান ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করলে আমি আমার ইউনিয়র্নের সকল সাধারণ মানুষদের সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে নিবো এবং তাদের দুর্ভোগ নিবারণের জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাব।
২রা নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মধ্য জাফলং ইউনিয়নের জনগণের মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী লোকমান শিকদার এর পক্ষে ব্যাপক গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ইউনিয়ন বাসীর কাছে তিনি এখন আশাভরসা এবং আস্থার প্রতীক। এমন অবস্থার কারণে জনগণের সমর্থনে তিনি মধ্য জাফলং ইউনিয়ন জনগণের প্রার্থী হিসেবে আনারস মার্কা নিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। নির্বাচনের শেষ প্রচারনার দিনে গণসংযোগ, মতবিনিময় ও পথসভায় স্বতঃস্ফূর্ত জনতার উপস্থিতি তাই প্রমাণ করছে। দল-মত নির্বিশেষে সর্বশ্রেণী পেশার মানুষ লোকমান হোসেন শিকদার এর পক্ষে একাত্মতা প্রকাশ করে যাচ্ছে। এ ইউনিয়নের জনগণ ঐক্যবদ্ধ হয়ে গেছে আনারসের পক্ষে। চেয়ারম্যান প্রার্থী লোকমান হোসেন এর তার আনারস প্রতীকে ভোট চেয়ে যেখানে যাচ্ছে সেখানে শুধু জয়ের আওয়াজ, স্বতঃস্ফূর্ততা। একজন সহজ সরল প্রার্থীর সাথে একাত্ম হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষগুলো। ভোটের আগাম হাওয়া এটিই প্রমাণ করে।
জনতার এই ভালোবাসা ও অকুণ্ঠ সমর্থনের বাস্তব প্রমাণ হবে ২রা নভেম্বর আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী
লোকমান শিকদার বলেছেন, আমি কোন দলের নই, সব মানুষের প্রার্থী। বিজয়ী হয়ে সবার জন্য কাজ করব। আমি সাধারণ মানুষ। সাধারণ মানুষের হয়েই আজীবন বেঁচে থাকতে চাই। গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ২রা নভেম্বর আপনাদের মূল্যবান ভোট আমি প্রত্যাশা করছি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

shares